Mithun Chakraborty:“ব্যর্থতার ভয়ে আত্মহত্যা করার কথাও ভাবতাম” মিঠুনের (Mithun Chakraborty) বক্তব্যে অবাক অনুরাগীরা।

সিনে বাংলা ডেস্ক: ১৯৭৬ সালে “মৃগয়া” যাকে এনে দিয়েছিল সেরা অভিনেতার খেতাব। পেয়েছিলেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। এর পর ১৯৯২ এ “তাহাদের কথা”, ১৯৯৮ এ “স্বামী বিবেকানন্দ” এনে দিয়েছিল আরও দুই সম্মান। এগুলির মাঝে তার ঝুলিতে ছিল “ডিস্কো ডান্সার”, “নিরাপত্তা”, “সাহস”, “ওয়ারদাত”, “বক্সার”, “অগ্নিপথ” – এর মতো একাধিক হিট ছবি। কিন্ত সে কিনা এক সময় নিজের জীবন শেষ করে দেওয়ার কথাও ভেবেছিলেন? হ্যাঁ সম্প্রতি একটি সংবাদ মাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছেন মহাগুরু মিঠুন চক্রবর্তী ।

বলিউড থেকে টলিউড সমান দাপটে এখনও কাজ করে যাচ্ছেন মিঠুন চক্রবর্তী (Mithun Chakraborty) । তবে কেরিয়ারের শুরুটা একেবারেই মসৃণ ছিল না তার । দিল্লির এক সংবাদ মাধ্যমকে তিনি বলেন, “আমি সাধারণত এ সম্পর্কে খুব বেশি কথা বলি না। এমন কোনো নির্দিষ্ট পর্বও নেই, যা আমি উল্লেখ করতে চাই। কারণ সবাই সংগ্রাম করে, নিজেকে সেক্ষেত্রে বিশেষ করে দেখানোর কোনো ইচ্ছা নেই। কিন্ত সত্যি বলতে কি, আমার সংগ্রাম ছিল সীমাহীন। মাঝে মাঝে ভাবতাম আমি পারবো তো? এমনকি ব্যর্থতার ভয়ে আত্মহত্যা করার কথাও ভাবতাম। কিন্ত এখন এই বয়সে এসে পরামর্শ দেব, কখনওই যুদ্ধ না করে জীবন শেষ করার কথা ভাববেন না। আমি লড়াই ছাড়িনি। দেখুন, আজ আমি কোথায় দাঁড়িয়ে আছি।

”মহাগুরু সম্প্রতি সঞ্জয় দত্ত (Sanjay Dutt) ও জ্যাকি শ্রফের (Jackie Shroff) সঙ্গে নতুন ছবিতে অভিনয় করছেন। কিন্ত তার নতুন ছবি নিয়ে কোনো কিছুই বলতে নারাজ মিঠুন চক্রবর্তী। তিনি বলেছেন, “আমি এখনই ছবির ব্যাপারে কিছু বলতে পারবো না। শুধু বলতে পারি যে, আমি এমন ছবিতেই বেশি আগ্রহী, যেগুলি বাস্তবের দলিল। তবে হ্যাঁ, এই ছবিটি উত্তেজনাপূর্ন হবে আশা করা যায়।

” মিঠুন (Mithun Chakraborty) কে শেষ দেখা গেছে বিবেক অগ্নিহোত্রীর ছবি “দ্যা কাশ্মীর ফাইলস” – এ। ১৯৯০ দশকে কাশ্মীরি হিন্দুদের উপর যেভাবে অত্যাচার করা হত তা নিয়েই তৈরি হয়েছিল এই ছবি। ছবি মুক্তির দু সপ্তাহের মধ্যে বক্স অফিসে পাল্লা ভারী হয়, ২০০ কোটি টাকা আয় করে ফেলে। এমনই ছবি মিঠুন করতে চান এমনটাই জানিয়েছেন তিনি। তার নতুন ছবি নিয়ে খুব আশাবাদী মহাগুরু।

Leave a Comment