Lokkhi Chele review: লক্ষী ছেলেদের স্পর্দার লড়াই‘লক্ষ্মী ছেলে’! কেমন হলো ছবিটি?

সিনে বাংলা ডেস্ক: বর্তমানে ধর্ম পণ্যে পরিণত হয়েছে। সমাজের যে নিয়ম মানে সে লক্ষ্মী ছেলে’, আর যে মানে না সে কুলাঙ্গার হিসেবে গণ্য হয়। এ সমাজে এখনো মনে করা হয় ঋতুঃস্রাবের সময় আচার ছুঁলে তা নাকি নষ্ট হয়ে যায়। সে সময় ঠাকুরের মন্দিরে যাওয়া তো ঘোর পাপ। অন্যদিক নিম্নবর্গীয় কাউকে ছুলে জাত যায়। অতিরিক্ত হাত,পা-ওয়ালা, কিংবা দু-পা জোড়া কাউকে দেখলেই তাকে ঈশ্বর বলে মনে করা হয়। কেউ বিষ্ণুর অবতার, কেউ বা দেবী লক্ষ্মীর! অথচ এরা বুঝতেই পারেন না সেই মানুষটার কী জ্বালা! সেই মানুষটির শরীর খারাপ হওয়া চলে না। কারন সে তো নিজেই ঠাকুর-দেবতা, তাঁর কি ডাক্তারের প্রয়োজন হয় নাকি?আর সমাজের এই রোগ সারাতে যদি অন্য ধর্মের কোনও ব্যক্তি চায় তাহলে তো কথাই নেই। তাঁর পরিণাম যে কতোটা ভয়ঙ্কর হতে পারে তা সকলের জানা।

গল্পটি হিঙ্গলগঞ্জ(Hingalganj) নামক এক জায়গার। সেখানে চার হাত-ওয়ালা এক মেয়ের জন্ম হয়। এরপরই আশেপাশের গ্রামে শোরগোল। ছুঁৎমার্গের জন্যে বাড়ির দুয়ারের আশপাশেও ঘেঁষতেন না গ্রামের বাবুরা। পাছে যদি জাত চলে যায়! যে নিম্নবর্গীয় মানুষেরা নিজেদের জীবনকে অভিশাপ বলে মনে করত। সে ঘরেই নাকি চার হাত-ওয়ালা কন্যাসন্তানের জন্ম হতে জাতে উঠল তাঁরা। সেই মেয়েটির নাম রাখা হল ‘লক্ষ্মী’(Lokkhi)। আর গ্রামের প্রশাসনিক কর্তাব্যক্তিদের কাছে লক্ষী হয়ে উঠল টাকা কামানোর উপায়। ‘লক্ষ্মী’(Lokkhi)-র আশীর্বাদ নিতে অনেক লোক আসতে শুরু করলেন ধীরে ধীরে তাদের দেওয়া টাকায় ফুলে-ফেঁপে উঠতে লাগল গ্রামের মোড়ল। ভোটে জেতার চাবিকাঠিও ছিল এই ‘লক্ষ্মী’। তবে তাদের এই প্ল্যান(plan) ভেস্তে যায় তিন জুনিয়র ডাক্তারের স্পর্ধার জন্য।

সেই জুনিয়র(junior) ডাক্তারেরা চিকিৎসা করিয়ে বাঁচান লক্ষ্মী(Lokkhi)-কে। এরপরই তাদেরকে সেই ভয়ঙ্কর পরিণাম ভুগতে হয়েছে । কারণ সেই জুনিয়র(junior) ডাক্তারদের একজনের নাম আমির হুসেন(Amir Hussain)। হিন্দু দেবীকে কোন সাহসে কোলে তুলে বাঁচান তিনি একজন মুসলিম হয়ে? আমির(Amir)- এর ভূমিকায় দেখা গিয়েছে উজান গঙ্গোপাধ্যায়(Ujaan Bandhopadhyay)-কে। এটি তাঁর দ্বিতীয় ছবি । উজান(Ujaan) এই ছবিতে দারুন অভিনয় করেছেন। তাঁর দুই সঙ্গী ছিল ঋত্বিকা পাল(Ritwika Pal) ও পূরব শীল আচার্য(Purav Sheel Acharya)-ও । তবে উজান(Ujaan)- এর পাশাপাশি আরেক অভিনেতার অভিনয়ের প্রশংসা না করলেই নয়। তিনি হলেন র ইন্দ্রাশীষ রায়(Indrasish Roy)। এছাড়াও ছবিতে রয়েছেন প্রদীপ ভট্টাচার্য(Pradip Bhattacharjee), চূর্ণী গঙ্গোপাধ্যায়(Churni Gangopadhyay) ও অম্বরিশ ভট্টাচার্য্য (Ambarish Bhattacharjee)ও। ছোট একটি চরিত্রে দেখা গিয়েছে বাবুল সুপ্রিয়(Babul Supriyo)-কে ।

Leave a Comment